গলফার জামালের লক্ষ্য

জানুয়ারি ২, ২০১৪ ১০:৫৫ পূর্বাহ্ণ

পিজিটিআই (প্রফেশনাল গলফ ট্যুর অব ইন্ডিয়া) টুর্নামেন্টে দুর্দান্ত খেলার পর এবার এশিয়ান ট্যুর খেলার লক্ষ্যস্থির করেছেন জামাল হোসেন মোল্যা। এ লক্ষ্যে জানুয়ারিতেই এশিয়ান ট্যুর কোয়ালিফাইং খেলতে থাইল্যান্ড যাচ্ছেন জামাল।

ভারতে টানা পাঁচটি টুর্নামেন্টে খেলে একমাস পর সোমবার দেশে ফিরেই এশিয়ান ট্যুরের জন্য ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন জামাল। পিজিটিআই ট্যুরে এবারের পারফরমেন্স সম্পর্কে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন,‘গত মৌসুম শেষে আমি পিজিটিআই অর্ডার অব মেরিটে ২১তম স্থানে ছিলাম। এবার আমার লক্ষ্য ছিল শীর্ষ দশে থাকা। আল্লাহর রহমতে আমার র‌্যাঙ্কিং এখন সাত-এ। আমার জন্য পিজিটিআইয়ে এটা একটা সফল মৌসুম ছিল।’

শ্রীলঙ্কা পোর্ট অথরিটি ওপেন, পিজিটিআই প্লেয়ার্স চ্যাম্পিয়নশিপ, সিজি ওপেন ও টাটা ওপেনে শিরোপা কাছাকাছি থাকলেও ব্যর্থ হয়েছেন জামাল। এ বিষয়ে পিজিটিআই তারকা বলেন, ‘অনভিজ্ঞতার কারণে হয়তো শেষ মুহুর্তে হোঁচট খেতে হচ্ছে। আসলে কোনো একটি হোলে বোগি (পারের চেয়ে একশট বেশি) করলেই রেগে যাই আমি। চাপ নিতে না পারায় এবার শেষ পর্যন্ত শিরোপা জিততে পারিনি। এটার জন্য এবার ইয়োগা ( যোগ ব্যায়াম) কোর্স করবো সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

আগামী মৌসুমে আর পিজিটিআই ট্যুর তেমন একটা খেলবেন না এমন সিদ্ধান্তই নিয়েছেন জামাল। এ সম্পর্কে উদীয়মান এ তারকা বলেন,‘আসলে চলতি মৌসুমে পিজিটিআই ট্যুরে ভাল প্রাইজমানি পেয়েছি। কিন্তু ওখানে খেলাটা খুব লাভজনক হয়না শেষ পর্যন্ত। কারণ প্রাইজমানির ২৬ শতাংশ আয়োজকরা কেটে রাখা হয়। এর বাইরে ক্যাডিকে দিতে হয় ১০ শতাংশ প্রাইজমানি। আর প্লেন ভাড়া এবং হোটেলে থাকা-খাওয়া ও যাতায়াত বাদে তেমন অর্থ আর থাকে না। সেজন্য আগামী পুরো মৌসুম জুড়েই এশিয়ান ট্যুরে খেলার লক্ষ্য নির্ধারণ করেছি।’

এশিয়ান ট্যুরে খেলাটা অনেক ব্যয় বহুল। তার আগে অবশ্য সুযোগটা পেতে হবে থাইল্যান্ডে বাছাই পর্ব খেলে। এ বিষয়ে জামাল জানান, থাইল্যান্ডে বাছাইপর্ব খেলতেই শুধু প্রায় পাঁচ হাজার মার্কিন ডলার খরচ হবে। এন্ট্রি ফি বাবদই লাগছে দুই হাজার ডলার। যেটা আমি এরই মধ্যে পাঠিয়ে দিয়েছি। বাছাই পর্বে তিনটি ধাপ থাকলেও প্রি- কোয়ালিফাইংগুলো আমাকে খেলতে হচ্ছে না। আমি শুধু শেষ ধাপটা খেলবো। তবে এটাও বেশ কঠিন। বলতে গেলে এশিয়ান ট্যুরের চেয়েও কঠিন বিষয়। এক হাজার প্রতিযোগী থেকে মাত্র ৪০ জন সুযোগ পাবে আগামী এশিয়ান ট্যুরে। তবে আমি কঠোর পরিশ্রম করছি। আশা করি খেলতে পারবো।’

পিজিটিআই ট্যুর খেলে যে প্রাইজমানি পেয়েছেন সেটা দিয়েই আপাতত এশিয়ান ট্যুর কোয়ালিফাইংয়ের ব্যয় নির্বাহ করবেন জামাল। তবে আশার কথা হচ্ছে প্রতিভাবান এ গলফারের স্বপ্ন পূরণে পৃষ্ঠপোষক হিসেবে এগিয়ে এসেছে  রানার গ্রুপসহ কিছু ব্যক্তি উদ্যোক্তা। কোয়ালিফাইংয়ে জন্য এরই মধ্যে থাই দূতাবাসে ভিসার কাগজপত্রও জমা দিয়েছেন জামাল। ১৫ তারিখে থাইল্যান্ডের উদ্দেশ্যে ঢাকা ছাড়বেন সিদ্দিকুরের এ উত্তরসূরী।

Share on Facebook
সম্পাদক মন্ডলীর চেয়ারম্যান ॥ মোঃ দেলোয়ার হুসেন শরীফ, সম্পাদক ॥ আনোয়ার হোসেন
উপজেলা মোড়, টেনিস কোর্ট রোড, ৫৯ মাষ্টার বাড়ি, ঢাকা।
সংবাদঃ ০১৭১১৩২৪৬৬০ বিজ্ঞাপনঃ ০১৯১১২৪৫৬১৬
ই-মেইল ॥ news@playingnews.com
খেলা পাগল মানুষদের কথা চিন্তা করেই দেশী-বিদেশী সকল ...
খেলাধূলার খবর