স্মারক স্টাম্প সংগ্রহে নিষেধাজ্ঞা!

মার্চ ২৬, ২০১৪ ৬:৩১ পূর্বাহ্ণ

9268নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দক্ষিণ আফ্রিকার ২ রানের নাটকীয় জয়ের পর চোখে লাগার মতো একটি ব্যাপার দেখা গেল। এমন একটি শ্বাসরুদ্ধকর জয়ের পর স্টাম্পের দিকে হাত বাড়াচ্ছেন না কোনো ক্রিকেটার। অথচ এমন একটি ম্যাচ জেতানোর পর স্টেইনের হাতে শোভা পাওয়া উচিত ছিল একটি স্টাম্প, যেটা তার কাছ সারা জীবন স্মৃতি হয়ে থাকত। কিন্তু আইসিসির নতুন নিয়মের কারণে সেটা সম্ভব হচ্ছে না। এখন থেকে ক্রিকেটাররা স্টাম্প নিতে পারবেন না। এর পেছনের কথা হলো, টি২০ বিশ্বকাপে এলইডি স্টাম্প ও বেলস ব্যবহার করা হচ্ছে। অতিমূল্যের কারণে ক্রিকেটারদের বিজয়ের স্মারক সংগ্রহ করতে দিচ্ছে না আইসিসি। এতদিন ক্যামেরা থাকা মিডল স্টাম্পটি ছাড়া বাকিগুলো ক্রিকেটাররা নিতে পারতেন।

আইসিসির নিষেধাজ্ঞার পরও কোনো ক্রিকেটার ভুলক্রমে স্টাম্পের দিকে হাত বাড়িয়ে বসতে পারেন। হাত বাড়ালেও তারা যেন স্টাম্প নিতে না পারেন, সেটা দেখার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে আম্পায়ারদের ওপর। তাই খেলা শেষে সবাই যখন করমর্দনে ব্যস্ত, তখন আম্পায়ারদের দেখা যায় স্টাম্প আগলে দাঁড়িয়ে থাকতে। যন্ত্রের কাছে ক্রমেই বাঁধা পড়ে যাচ্ছে মানবীয় উচ্ছ্বাস। ক্রিকেট খেলাটাকে আকর্ষণীয় এবং ভুল কমিয়ে আনার জন্য তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার ক্রমেই বাড়ছে। টি২০ বিশ্বকাপে স্টাম্পে বল লাগা মাত্র জ্বলে উঠছে লাল আলো। আলো জ্বলার সঙ্গে সঙ্গে এক সেকেন্ডের এক হাজার ভাগের এক ভাগ সময়ের মধ্যে স্বয়ংক্রিয়ভাবে একটি রেডিও সিগন্যালও পেঁৗছে যায়। দেখতে ব্যাপারটি বেশ সুন্দর লাগে। ভুলও কমে যাচ্ছে অনেক। ‘জিং উইকেট সিস্টেম’ ব্যবহারের কারণে এমন হচ্ছে। দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়ার ‘জিং ইন্টারন্যাশনাল’ এর আবিষ্কারক; কিন্তু এই সুন্দরের জন্য ক্রিকেটারদের আর স্টাম্পের জন্য কাড়াকাড়ি করতে দেখা যাবে না। কোনো ক্রিকেটারের বাড়ির ড্রয়িংরুমে শোভা পাবে না বিজয়ের স্মারক। অন্তত আইসিসির টি২০ টুর্নামেন্টের কোনো স্মারক।

জিং উইকেট সিস্টেমের আবিষ্কারক অস্ট্রেলিয়ার ব্রোন্তে একারম্যান। জানা গেছে, এ পদ্ধতি ব্যবহারে খরচ পড়ে প্রায় ৪০ হাজার ইউএস ডলার। একটি সংবাদ মাধ্যমকে ব্রোন্তে নতুন উইকেট সিস্টেম সম্পর্কে বলেন, ‘এর পেছনে অনেক খরচ করতে হয়। প্রতিটি বেলের মূল্য প্রায় অত্যাধুনিক একটি আইফোনের সমান। তাই ম্যাচ শেষে ক্রিকেটারদের তা নিয়ে যেতে দিতে পারি না।’ নতুন নিয়মের ফলে বিজয়ের স্মারক সংগ্রহ করতে না পারার প্রভাব পড়ছে ক্রিকেটারদের ওপর। এরই মধ্যে অনেকে মুখও খুলতে শুরু করেছেন। সোমবার নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে এমন একটি জয়ের পর স্টেইনের হাতে স্টাম্প তুলে দিতে না পারায় বেশ হতাশ দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক ফ্যাপ ডু প্লেসিস_ ‘আমার ক্যারিয়ারের অন্যতম একটি স্মরণীয় বিজয়। স্টেইনের দুর্ধর্ষ বোলিংয়ের কারণেই শেষ বলে জয়টি এসেছে। তার পরও তার হাতে একটি স্টাম্প তুলে দিতে না পারায় কিছুটা খারাপ লাগছে। যদি সেমিফাইনালে উঠতে পারি, তাহলে চেষ্টা করব একটি স্টাম্প সংগ্রহ করার।’

Share on Facebook
সম্পাদক মন্ডলীর চেয়ারম্যান ॥ মোঃ দেলোয়ার হুসেন শরীফ, সম্পাদক ॥ আনোয়ার হোসেন
উপজেলা মোড়, টেনিস কোর্ট রোড, ৫৯ মাষ্টার বাড়ি, ঢাকা।
সংবাদঃ ০১৭১১৩২৪৬৬০ বিজ্ঞাপনঃ ০১৯১১২৪৫৬১৬
ই-মেইল ॥ news@playingnews.com
খেলা পাগল মানুষদের কথা চিন্তা করেই দেশী-বিদেশী সকল ...
খেলাধূলার খবর