প্রতিটি উইকেটে খরচ ২ লাখ টাকা

আগস্ট ১৩, ২০১৪ ৩:১৫ অপরাহ্ণ

ক্রিকেটের উন্নতির স্বার্থে প্রচেষ্টার কমতি নেই বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি)। বিসিবি’র উদ্দ্যেগে নতুন রূপে আরো ৩০টি উইকেট করা হবে। ক্রিকেটাররা যেন নতুন ও উন্নত উইকেটে অনুশীলন করে পারে, তার ধারাবাহিকতায় বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের ইচ্ছা, গ্রাউন্ডস এন্ড ফ্যাসিলিটি কমিটি সারা বাংলাদেশে ৩০টি উইকেট তৈরি করবে। যার প্রতিটিতে খরচ হবে দুই লাখ টাকা।

মিরপুর সাহারা বিসিবি এ্যাকাডেমি মাঠের মাঝখানে খোঁড়া খুঁড়ি দেখা যায়। এর উদ্দেশ্যে হলো আগের উইকেট পুরাতন হয়ে গিয়েছে। তাই নতুন উইকেট তৈরি করতে হচ্ছে। নতুন উইকেট প্রসঙ্গে বিসিবি’র গ্র্যাউন্ডস এন্ড ফ্যাসিলিটি কমিটির ম্যানেজার আব্দুল বাতেন বলেন,‘খেলোয়াড়দের জন্য নতুন ৩০টি উইকেট তৈরি করা হচ্ছে।’

নিউজিল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার বিশ্বকাপকে সামনে রেখে তাদের মতো উইকেট তৈরি করা হবে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন,‘না ওই রকম কিছু না। এগুলো অনুশীলনের জন্য তৈরি করছি। আগের গুলো পুরাতন হয়ে গেছে। তাই নতুন বানানো হচ্ছে। আর উইকেট নির্ভর করে পানি, মাটি ও ঘাসের উপর। গ্রাসি উইকেট বাউন্সি হয়। আর ন্যাড়া করে দিলে স্পিনারদের জন্য সুবিধা। মিরপুর শের-ই বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়াম মাঠের উইকেটে চাপ কমাতে এ্যাকাডেমি মাঠে নতুন উইকেট তৈরি করা হচ্ছে।’

বিসিবি’র এ্যাকাডেমি মাঠে আগের উইকেটের সঙ্গে আরো ১০টি উইকেট তৈরি করা হবে। আঃ বাতেন আরো বলেন,‘এখানে হবে ১০টি উইকেট। আর সারা বাংলাদেশে মোট ৩০টি উইকেট তৈরি করা হবে। চট্টগ্রাম, বিকেএসপি ও কক্সবাজারে উইকেট তৈরি করছি। এ্যাকাডেমি মাঠে আগের আটটা আছে। এখন হবে আরো ১০টা। মাঝখানে দুইটা আর সাইডে চারটা করে মোট আটটা হবে। আর কিভাবে নিয়ন্ত্রন করবেন সেটা আপনার উপর নির্ভর করছে। যে উইকেট গুলো তৈরি করছি সেগুলো থেকে প্লেয়াররা সহায়তা পাবে।’

সাধারণত দর্শকরা দেখে থাকেন উইকেট মাটির তৈরি। উইকেটের নিচে কি কি উপাদান থাকে জানতে চাইলে তিনি বলেন,‘আন্তর্জাতিক মানের উইকেট সবগুলো একই রকম হয়। এটা নির্ভর করে পিচ কিভাবে রাখবেন, খেলার আগে কিভাবে ফিনিসিং দিবেন। প্রথমে পাথরের বেইজমেন্ট, ভিজা মাটি, সিলেক্ট সয়েল দেয়া হয়। এরপর উপরে কঠিন কালো বা লাল মাটি থাকে। শক্ত করে রোল করার পর পিচ সয়েল দিতে হয়। পিচ সয়েল দেওয়ার পর কেউ কেউ গ্রাস লাগায়।’

উইকেট তৈরির সম্পূর্ণ খরচ বিসিবি’র। ঢাকার উইকেট তৈরি করতে যা খরচ হয়, তার চেয়ে বেশি খরচ হয় ঢাকার বাইরে উইকেট বানাতে। মাটি ও পাথর পরিবহন করার কারণে খরচের পরিমান বাড়ে। প্রতি উইকেটে কত খরচ হবে এমন প্রশ্নে তিনি বলেন,‘প্রতি উইকেটে দুই লাখ টাকা লাগবে। ইম্পেরিয়াল ঠিকাদার কোম্পানি এই দায়িত্ব নিয়েছে। আমরা ওপেন টেন্ডারের মাধ্যমে একটি বিজ্ঞাপন দেই। প্রায় দুই মাস লেগে যাবে একটি উইকেট তৈরি করতে। আমরা শুধু ঠিকাদার কোম্পানিকে দায়িত্ব দিয়ে দেই। তারা পাথর, বালি, মাটি, শ্রমিক সবকিছু আনেন। পিচ কেমন হবে সেটা নির্ভর করবে পিচ কিউরেটরের উপর। এই উইকেট ডিসেম্বর বা জানুয়ারির দিকে ব্যবহার উপযোগী হবে। ঘাস লাগাতে হবে, এরপর রোল করতে হবে। এটা প্রথম শুরু করা হলো, বাকি গুলো শুরু হবে আস্তে আস্তে।’

ঢাকা ছাড়াও চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, কক্সবাজার ও বিকেএসপি’র মাঠে উইকেট তৈরি করা হবে।

Share on Facebook
সম্পাদক মন্ডলীর চেয়ারম্যান ॥ মোঃ দেলোয়ার হুসেন শরীফ, সম্পাদক ॥ আনোয়ার হোসেন
উপজেলা মোড়, টেনিস কোর্ট রোড, ৫৯ মাষ্টার বাড়ি, ঢাকা।
সংবাদঃ ০১৭১১৩২৪৬৬০ বিজ্ঞাপনঃ ০১৯১১২৪৫৬১৬
ই-মেইল ॥ news@playingnews.com
খেলা পাগল মানুষদের কথা চিন্তা করেই দেশী-বিদেশী সকল ...
খেলাধূলার খবর