পয়েন্ট হারিয়েও শীর্ষে ঢাকা আবাহনী

ফেব্রুয়ারি ৩, ২০১৪ ৮:৫৪ পূর্বাহ্ণ

নিটল-টাটা বাংলাদেশ প্রিমিয়ার ফুটবল লিগে শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্রের সঙ্গে গোলশূণ্য ড্র করেও পয়েন্ট তালিকার শীর্ষ স্থানটি ধরে রেখেছে ঢাকা আবাহনী। সোমবার বিকেলে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচে গোলের দেখা মেলেনি। ফলে উভয় দলকে এক পয়েন্ট করে নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয়। এই ড্রতে আবাহনী সাত ম্যাচ শেষে ১৭ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে রয়েছে। ৮ ম্যাচে অংশ নিয়ে শেখ রাসেলের সংগ্রহ ১২ পয়েন্ট।
সোমবার ম্যাচের শুরুতে শেখ রাসেলের এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ থাকলেও প্রথমার্ধের বেশীরভাগ সময় আবাহনী চাপের মুখেই ছিলো তারা। এ ম্যাচে প্রথম মাঠে নামেন আইরিশ লিগ খেলে আসা শেখ রাসেলের নতুন আস্থা হাইতি জাতীয় দলের ফরোয়ার্ড প্যাসকেল মিলিয়েন। কিন্তু তিনি নিজেকে ততটা মেলে ধরতে পারেননি। তাইতো ম্যাচ শেষে প্যাসকেল বলেন,‘ আজ (গতকাল) প্রথম মাঠে নামলাম। ম্যাচটা বেশ উপভোগ করেছি । গোল করার চেষ্টা করেছি কিন্তু ভাগ্য সহায় হয়নি তাই গোল পাইনি।’
ম্যাচের শুরুতে আক্রমণ সানিয়েছিলো শেখ রাসেলই। ৪ মিনিটে ডানপ্রান্ত থেকে জ্যামাইকান রিকার্ডো কাজিনসের শট কর্ণারের বিনিময়ে রক্ষা করেন আবাহনীর গোলরক্ষক শহীদুল আলম সোহেল। এরপর বল দখলের লড়াইয়ে পেছনে পড়ে যায় শেখ রাসেল। আবাহনী একের পর এক আক্রমণ করে রাসেলের গোলমুখে। ২৭ মিনিটে এগিয়ে যাওয়ার একটা সুযোগও তৈরী করে আবাহনী। ডানপ্রান্ত থেকে ক্যামেরুণের ফরোয়ার্ড  একেলে পেট্্িরকের শট রাসেলের অভিজ্ঞ গোলরক্ষক বিপ্লব দক্ষতার সঙ্গে গ্রিপে নিয়ে দলকে রক্ষা করেন। এর তিন মিনিট পর বামপ্রান্ত থেকে তৌহিদুল আলম গোলবার লক্ষ্য করে শট নিলে তা অল্পের জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। ৪১ মিনিটে এগিয়ে যাওয়ার অপূর্ব সুযোগ এসেছিলো  শেখ রাসেলের। বক্সলাইনে মিডফিল্ডার শাকিলকে অবৈধভাবে বাধা দেন আবাহনীর অধিনায়ক সুজন। ফ্রি কিক করেন রাসেলের হাইতিয়ান ফরোয়ার্ড প্যাসকেল । কিন্তু তার শটটি আবাহনীর রক্ষণদূর্গে লেগে ফিরে আসে। ৪৫ মিনিটে আরো একবার  ট্রেবলজয়ীদের গোলমুখে আক্রমণ করেন আবাহনীর একেলে পেট্রিক। কিন্তু শেখ রাসেলের ডিফেন্ডাররা বল ক্লিয়ার করায় তার সেই চেষ্টা ব্যর্থ হয়। প্রথমার্ধ গোলশূণ্য থেকেই বিশ্রামে যায় উভয় দল।
প্রথমার্ধে ভালো খেললেও দ্বিতীয়ার্ধে চাপের মুখে পড়ে আবাহনী। এই অর্ধের শুরু থেকেই আবাহনীর গোলমুখে একের পর এক আক্রমণ চালান শেখ রাসেলের স্ট্রাইকাররা। ৫৫ মিনিটে রিকার্ডো কাজিনস মাঝমাঠ থেকে বল দেন হাইতিয়ান প্যাসকেলকে। কিন্তু এবারো দলকে সফলতার মুখ দেখাতে ব্যর্থ হন এই মিডফিল্ডার। বামপ্রান্ত  থেকে করা তার শট সাইডবারে লেগে বাইরে চলে যায়। ৫৯ মিনিটে মাঝমাঠ থেকে রবিন আবারো প্যাসকেলকে বল দিলে তিনি দুর্দান্ত শট নেন। কিন্তু আবাহনীর গোলরক্ষক সোহেল দক্ষতার সঙ্গে ফিস্ট করলে গোলের হাত থেকে বাঁচে তার দল। ৬৭ মিনিটে নিজেদের দখলে বল পেয়ে রাসেলের গোল মুখে জোড়ালো আক্রমণ করেন আবাহনীর মিডফিল্ডার তৌহিদুল। কিন্তু এবারো দক্ষতার পরিচয় দিয়ে দলকে রক্ষা করেন গোলরক্ষক বিপ্লব। ৬৯ মিনিটে একেলে পেট্রিকের বাড়িয়ে দেয়া বলে প্রতিপক্ষ ডি-বক্সের ভেতর থেকে আবাহনীর তৌহিদ শট নিলে সহজেই বল গ্রিপে নেন বিপ্লব। ম্যাচের অন্তিম মুহূর্তে একেলে পেট্রিকের পাস থেকে বল পেয়ে বামপ্রান্ত থেকে শট করেন আকাশী-হলুদ শিবিরের মিডফিল্ডার জামাল। কিন্তু তার দুর্বল শট খুব সহজেই গ্রিপে নেন বিপ্লব। শেষ পর্যন্ত গোল না হওয়ায় ম্যাচ গোলশূণ্য অমিমাংসিতভাবেই শেষ হয়। মঙ্গলবার একই ভেন্যুতে বিকেল সাড়ে ৪টায় ব্রাদার্স ইউনিয়ন মুখোমুখি হবে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের।

Share on Facebook
সম্পাদক মন্ডলীর চেয়ারম্যান ॥ মোঃ দেলোয়ার হুসেন শরীফ, সম্পাদক ॥ আনোয়ার হোসেন
উপজেলা মোড়, টেনিস কোর্ট রোড, ৫৯ মাষ্টার বাড়ি, ঢাকা।
সংবাদঃ ০১৭১১৩২৪৬৬০ বিজ্ঞাপনঃ ০১৯১১২৪৫৬১৬
ই-মেইল ॥ news@playingnews.com
খেলা পাগল মানুষদের কথা চিন্তা করেই দেশী-বিদেশী সকল ...
খেলাধূলার খবর