জেগে উঠল আগ্নেয়গিরি, ছাইয়ে ঢাকা গোটা জাভা

ফেব্রুয়ারি ১৫, ২০১৪ ৭:০১ পূর্বাহ্ণ

7015গভীর রাতে সবাই যখন ঘুমে, তখনই ফুঁসে উঠল মাউন্ট কেলুট৷ প্রশাসনিক তৎপরতায় ইন্দোনেশিয়ার জাভায় এই আগ্নেয়গিরির গ্রাস থেকে প্রায় সকলকে উদ্ধার করা গেছে৷ কিন্তু দু’জনের মৃত্যু ঠেকানো যায়নি৷ আগ্নেয়গিরি জেগে ওঠায় তীব্র ভূমিকম্পের ফলে ছিটকে আসা পাথর আছড়ে পড়েছিল ঘরের উপর৷ দুই বৃদ্ধ-বৃদ্ধা পালানোর ন্যূনতম সুযোগটুকু পাননি৷

বৃহস্পতিবার মাঝরাত থেকে লাভা আর ছাই উগরে দিতে শুরু করে কেলুট৷ শূন্যে প্রায় ১৭ কিলোমিটার পর্যন্ত উঠে যায় ছাই আর ধোঁয়ার কুণ্ডলী৷ ইন্দোনেশিয়ার দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর সুরাবায়া থেকে ১৪০ কিমি দূরে কেলুটের তাণ্ডবে যোগজাকার্তা ও সোলো শহরের বিমানবন্দর বন্ধ হয়ে গিয়েছে৷ সুরাবায়ার বিমানবন্দর তো বন্ধই, হাওয়ায় ভেসে আসা ছাইয়ে নাজেহাল গোটা শহর৷ কেলুটের পশ্চিমে অবস্থিত যোগজাকার্তা, জাভা, সিলাক্যাপ, মেগাল্যাংয়ের মতো শহরের আকাশেও ছাইয়ের দাপট৷

রাত থেকেই আগ্নেয়গিরি লাগোয়া এলাকা থেকে লোকজনকে নিরাপদে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া শুরু হয়৷ ছাইয়ে ঢাকা রাস্তায় সার বেঁধে গাড়িতে করে একে একে সকলে চলে আসতে শুরু করেন এলাকা ছেড়ে৷ শুক্রবার বিকেলের মধ্যে লাখ দেড়েক মানুষকে অন্যত্র সরানো হয়েছে৷

বৃহস্পতিবার রাতের অভিজ্ঞতা কেমন ছিল? ব্লিটার গ্রামের বৃদ্ধা সুনারের কথায়, ‘কেলুট ফুঁসে উঠবে, সে পূর্বাভাস ছিল৷ কিন্ত্ত তা যে এত দ্রুত ঘটবে, ভাবতে পারিনি৷ মাঝরাতে হঠাত্ তীব্র কম্পন৷ ঘর থেকে বেরিয়ে আসার কিছু পরই একটা বিশাল পাথর গড়িয়ে এল৷ চোখের সামনে ঘরটা গুঁড়িয়ে গেল৷’ প্রাশাসন সূত্রে জানানো হয়েছে, ন্যাশনাল ডিজাস্টার মিটিগেশন এজেন্সির তরফে আগেই কেলুট সম্পর্কে সতর্ক করা হয়েছিল৷ তাই উদ্ধারকাজে সমস্যা হয়নি৷

কেলুটের ১০ কিমি ব্যাসের মধ্যে অন্তত দু’লক্ষ মানুষের বাস৷ কেলুটের পশ্চিমে ৯ কিমি দূর থেকে ধোঁয়া দেখা গিয়েছে৷ তবে শুক্রবার শেষ পাওয়া খবরে জানা গিয়েছে, ধীরে ধীরে শান্ত হচ্ছে কেলুট৷ তবে কবে এলাকায় ফিরে যাওয়া নিরাপদ হবে, সে সম্পর্কে প্রশাসনের তরফে কিছু বলা হয়নি৷

ইন্দোনেশিয়ার পরিবহণ মন্ত্রণালয় সূত্রে জানানো হয়েছে, যোগজাকার্তা বা সুরাবায়ায় পৌঁছনোর আগেই অনেক বিমানের মুখ ঘুরিয়ে দেওয়া হয়েছে৷ অন্তত দু’দিন কেলুটের আশপাশের সব বিমানবন্দর বন্ধ রাখা হবে৷ যোগজাকার্তা লাগোয়া বোরোবুদুরের বিখ্যাত বৌদ্ধ স্তূপের গেটও বন্ধ করে দেয়া হয়েছে৷

ন্যাশনাল ডিজাস্টার মিটিগেশন এজেন্সি জানিয়েছে, স্বাভাবিক নিয়মে কেলুট আগামী কয়েক দিনে আরও কয়েকবার ফুঁসে উঠবে৷ কিন্ত্ত এ বারের মতো অশান্ত হওয়ার সম্ভাবনা ক্ষীণ৷ ইন্দোনেশিয়ায় ১৩০টি জাগ্রত আগ্নেগিরির মধ্যে কেলুট অন্যতম৷ তথাকথিত ‘প্যাসিফিক রিং অফ ফায়ারে’র অন্যতম সদস্য৷

Share on Facebook
সম্পাদক মন্ডলীর চেয়ারম্যান ॥ মোঃ দেলোয়ার হুসেন শরীফ, সম্পাদক ॥ আনোয়ার হোসেন
উপজেলা মোড়, টেনিস কোর্ট রোড, ৫৯ মাষ্টার বাড়ি, ঢাকা।
সংবাদঃ ০১৭১১৩২৪৬৬০ বিজ্ঞাপনঃ ০১৯১১২৪৫৬১৬
ই-মেইল ॥ news@playingnews.com
খেলা পাগল মানুষদের কথা চিন্তা করেই দেশী-বিদেশী সকল ...
খেলাধূলার খবর